মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
লক্ষ্মীপুরে যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় ৫ নেতা কারাগারে রামগঞ্জে পারিবারিক বিরোধে শিক্ষিকাকে পিটিয়ে জখম জেলা আ.লীগের সম্মেলন আজ, শীর্ষ পদে লড়ছেন রামগঞ্জের দুই সিনিয়র নেতা রামগঞ্জে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরন উদ্ভোধন প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকবে, প্রতিহিংসা নয়- আওয়ামিলীগের প্রস্তুতি সভায় সিনিয়র নেতৃবৃন্ধ রামগঞ্জে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি অপূর্ব সাহা, সম্পাদক অমৃত লাল রামগঞ্জে নানা আয়োজনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত রামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভা স্থগিত গাছের ডাল কাটাকে কেন্দ্র করে প্রান গেলো ভাইবোনের রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরন সিত্রাং মোকাবেলায় রামগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের জরুরি সভা রিজার্ভ কমে ৩৫ বিলিয়ন ডলারের ঘরে পানির নিচ থেকে মাটি তুলে আনতে গিয়ে নিখোঁজ তরুণ লক্ষ্মীপুরে দুই হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রামগঞ্জে শিক্ষকের উপর ছাত্রলীগ নেতার হামলা, বিচারের দাবিতে মানববন্ধন রামগঞ্জে বিদ্যালয় ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন রামগঞ্জে ইউপি সদস্যকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা ফাঁস লাগানো অবস্থায় ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার রামগঞ্জে ক্বওমী মাদরাসা ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে ফিকহী সেমিনার রাঙামাটিতে জশনে জুলুছে মুসল্লির ঢল



স্যার ফিনিশডঃ খুনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল আউয়ালের অফিসে বসেই

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
  • ৭০৫ Time View
গ্রেফতারকৃত ৩ আসামি, ছবি: সংগৃহীত।

রামগঞ্জ কন্ঠঃ রাজধানীর পল্লবীতে জমি নিয়ে বিরোধে সাহিনুদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে সন্তানের সামনে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় সাবেক সংসদ সদস্য এম এ আউয়ালের সম্পৃক্ততা পেয়েছে র‌্যাব। হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছিল আউয়ালের কলাবাগানের অফিসে বসেই।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) বিকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বাহিনীর আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি বলেন, ১৬ মে দুপুরে নিজ সন্তানের সামনে সাহিনুদ্দিনকে চাপাতি, রামদাসহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এই ঘটনায় যাদের সম্পৃক্ততা ছিল র‌্যাব তাদেরকে গ্রেফতারে অভিযান শুরু করে। ১৯ মে চাঁদপুর থেকে হাসানকে গ্রেফতার করা হয়। ২০ মে রাতে হত্যাকাণ্ডের ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী এম এ আউয়ালকে ভৈরব থেকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া পটুয়াখালীর বাউফল থেকে ১৯ নম্বর আসামি জহিরুল ইসলাম বাবুকে গ্রেফতার করে র‌্যাবের আরেকটি দল। তারা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

র‍্যাবের এ কর্মকর্তা বলেন, হত্যার ঘটনার চার পাঁচদিন আগে এম এ আউয়ালের কলাবাগানের অফিসে মোহাম্মদ তাহের ও সুমন এই হত্যার পরিকল্পনা করে। মাঠ পর্যায়ে হত্যার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সুমনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর সুমন সক্রিয়ভাবে কিলিং মিশনে অংশগ্রহণ করে। এসময় বেশ কয়েকজন কিলিং মিশনে জড়িত ছিল। পাঁচ থেকে সাত মিনিটের মধ্যে পুরো ঘটনাটি শেষ হয়। ঘটনা শেষে সুমনসহ বাকিরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। এসময় সুমন এক নম্বর আসামি আউয়ালকে মোবাইলে জানায় ‘স্যার ফিনিশড’।

র‌্যাব জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, সুমন, বাবুসহ কয়েকজন একটা মিটিং করে। এরপর ঘটনার দিন তারা সাহিনুদ্দিনকে ঘটনাস্থলে ডেকে নেয়। এসময় সাহিনুদ্দিন তার সন্তান মাশরাফিকে নিয়ে সেখানে যায়। মীমাংসার কথা বলে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা সন্ত্রাসী সুমন, মানিক, হাসান, ইকবালসহ ১০/১২ জন সাহিনুদ্দিনকে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে।

হত্যাকাণ্ডের পর আসামিরা ঢাকার বাইরে বিভিন্ন স্থানে গা ঢাকা দেয়। ১৭ মে মামলার ১৩ নম্বর আসামি দিপুকে র‌্যাব-৪ গ্রেফতার করে পল্লবী থানায় সোপর্দ করে। গ্রেফতার মূল আসামি এম এ আউয়াল একজন জমি ব্যবসায়ী। তার ছত্রছায়ায় সুমন জমি দখল, সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও এলাকায় প্রভাব বিস্তার করত এবং প্রতিমাসে মাসোহারা বাবদ ১০-১২ হাজার টাকা নিত। তাছাড়া বিভিন্ন কাজেও টাক নিত। এই সন্ত্রাসী দল রিকশা টোকেন বাণিজ্য, মাদক, জুয়াসহ অন্যান্য অপরাধ কার্যক্রমে জড়িত ছিল বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে রাজধানীর পল্লবীতে সাহিনুদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এক বিঘার বেশি পরিমাণ জমি কেনার চেষ্টার করছিল সাবেক এমপি আউয়ালের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ‘হ্যাভিলি প্রপার্টি’। নিহত সাহিনুদ্দিন ও তার স্বজনরা এই জমির মালিক। কম টাকায় জমি কিনতে না পারায় এই হত্যার ঘটনা ঘটে বলে জানায় র‌্যাব।



More News Of This Category



© All rights reserved © 2020 banglahost
Design & Developed by: ATOZ IT HOST
Tuhin